দূর্গাপুররাজশাহী সংবাদ

দুর্গাপুরে সরকারি গাছ কেটে বিক্রি করে দিলেন আ’লীগ নেতা

স্টাফ রিপোর্টার : দুর্গাপুরের পাঁচুবাড়ী বাজারের পানহাটের দক্ষিণ পার্শ্বে সরকারি দু’টি মেহগনি গাছ কাটার অভিযোগ উঠছে আওয়ামী লীগ নেতা গফুর মোল্লার বিরুদ্ধে। তিনি উপজেলার দেলুয়াবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি।

ওই ঘটনা জানাজানির পর বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার লক্ষণখলসী ভূমি অফিসের উপ-সহকারী কর্মকর্তা অহিদুল ইসলাম রাতের আধারে কে বা কাহারা সরকারি দু’টি মেহগনি গাছ কেটে নিয়ে গেছে উল্লেখ করে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। তবে ওই হাটে পাবলিক টয়লেট নির্মানের জন্য সরকারি দু’টি মেহগনি গাছ কেটে বিক্রি করে ওই টাকা দিয়ে গর্তে বালি ভরাট দিয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন দেলুয়াবাড়ী ইউপি আওয়ামী লীগ নেতা গফুর মোল্লা।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার পাঁচুবাড়ী বাজারের পানহাটের দক্ষিণ পার্শ্বে সরকারি সম্পত্তিতে দু’টি মেহগনি গাছ ছিল। যার অনুমানিক মূল্য প্রায় ৩০হাজার টাকা। গত সোমবার আওযামী লীগ নেতা গফুর মোল্লা গাছ দু’টি কেটে বিক্রি করে দেন। পরে টেন্ডার ছাড়াই সরকারি মেহগনি দু’টি গাছ বিক্রি করায় এলাকায় সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

এদিকে, ওই ঘটনায় বৃহস্পতিবার গাছকাটার ঘটনায় লক্ষণখলসী ভূমি অফিসের উপ-সহকারী কর্মকর্তা অহিদুল ইসলাম রাতের আধারে কে বা কাহারা সরকারী দু’টি মেহগনি গাছ কেটে নিয়ে গেছে উল্লেখ করে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

উপজেলার দেলুয়াবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গফুর মোল্লা বলেন, ওই জায়গায় হাটের পাবলিক টয়লেট নির্মাণ করা হবে। এ জন্য আমি উপর মহলের সাথে কথা বলে অনুমতিক্রমে আমি মেহগনি গাছ দু’টি কেটে বিক্রি করেছি। গাছ বিক্রির ১৬হাজার টাকা দিয়ে যেখানে পাবলিক টয়লেট নির্মাণ করা হবে সেখানে বালির ভরাট করেছি। এখন ওখানে পাবলিক টয়লেট নির্মাণ করা হবে।

লক্ষণখলসী ভূমি অফিসের উপ-সহকারী কর্মকর্তা অহিদুল ইসলাম বলেন, সরকারি সম্পত্তিতে দু’টি মেহগনির গাছ কেটে কে বা কাহারা বিক্রি করেছেন। বৃহস্পতিবার গাছকাটার ওই ঘটনায় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এ বিষয়ে জানতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাথে বলতে বলে তিনি ফোন কেটে দেন।

দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তদন্ত মাহমুদুল হাসান বলেন, ওই ঘটনায় লক্ষণখলসী ভূমি অফিসের উপ-সহকারী কর্মকর্তা অহিদুল ইসলাম সরকারী সম্পত্তিতে দু’টি মেহগনির গাছ কেটে কে বা কাহারা কেটে মর্মে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। বিষয়টি তদন্তাধীণ রয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মহসিন মৃধা জানান, আমি এখন মিটিংয়ে আছি। পরে কথা বলবো বলে জানান তিনি।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button