রাজশাহী সংবাদ

বিজিবি-বিএসএফের সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে সৌজন্যমূলক পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিজিবি-বিএসএফের সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে সৌজন্যমূলক পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখ অত্র সেক্টরের অধীনস্থ রাজশাহী ব্যাটালিয়নের(১ বিজিবি) আওতাধীন খরচাকা বিওপি’র প্রতিপক্ষ ৩৫ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের নির্মলচর বিএসএফ ক্যাম্পের দায়িত্বপূর্ণ সীমান্ত পিলার-৫৩/৭-এস এর নিকট (ভারতের অভ্যন্তরে) সেক্টর কমান্ডার, বিজিবি রাজশাহী এবং বিএসএফ বেহরামপুর সেক্টর কমান্ডার এর মধ্যে সৌজন্যমূলক পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
উক্ত সৌজন্যমূলক পতাকা বৈঠকে বিজিবি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন কর্নেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ, বিপিএম, জি, সেক্টর কমান্ডার, বিজিবি রাজশাহী এবং বিএসএফ বেহরামপুর সেক্টর প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন ডিআইজি শ্রী কুনাল মজুমদার। উক্ত পতাকা বৈঠকে বিজিবি’র পক্ষে অংশগ্রহণ করেন অধিনায়ক, রাজশাহীঁ ব্যাটালিয়ন (১ বিজিবি), চাঁপাইনবাবগঞ্জ ব্যাটালিয়ন(৫৩ বিজিবি), অতিরিক্ত পরিচালক(অপারেশন), বিজিবি রাজশাহী, রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ ব্যাটালিয়নের অন্যান্য স্টাফ অফিসার এবং ০২X কোম্পানী কমান্ডার। বিএসএফ এর পক্ষে অংশগ্রহণ করেন ৩৫, ১১৭ ও ১৪১ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের কমান্ড্যান্টবৃন্দ, অন্যান্য স্টাফ অফিসার এবং কোম্পানী কমান্ডারবৃন্দ।
উক্ত সৌজন্যমূলক পতাকা বৈঠকে সীমান্ত সংক্রান্ত দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিবিধ বিষয়াদি যেমন-গত ৩১ জানুয়ারি ২০২০ তারিখ বিএসএফ সদস্য কর্তৃক অবৈধভাবে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করতঃ বিজিবি টহল দলের হেফাজতে থাকা বাংলাদেশী জেলেদের আটকের চেষ্টা এবং বিজিবি টহল দলের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের বিষয়ে আলোচনা হয়। এ ব্যাপারে বিএসএফ কর্তৃক ভবিষ্যতে অনুরুপ ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না বলে বিজিবি প্রতিনিধিদলকে আশ্বস্ত করেন।
এছাড়াও সীমান্ত হত্যা-নির্যাতন, মাদকদ্রব্য পাচার বিশেষ করে ইয়াবা/হেরোইন পাচার রোধ, উভয় দেশের রাখাল কর্তৃক অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে গবাদিপশু চরানো, সীমান্তে কাঁটাতরের বেড়া কাটা, সীমান্তে গুলিবর্ষণ না করা, চোরাচালান, অবৈধ অস্ত্র-গোলাবারুদ ও বিস্ফোরক দ্রব্য পাচার প্রতিরাধ, নারী-শিশু ও মানব পাচার প্রতিরোধ, অবৈধ সীমান্ত পারাপার বন্ধে নিচ্ছিদ্র সীমান্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা, সমন্বিত টহল ইত্যাদি সম্পর্কে অত্যন্ত ফলপ্রসু আলোচনা হয়। দুই পক্ষই বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত চুক্তির আলোকেচুক্তির আলোকে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে উদ্ভুত যে কোন সমস্যা যে কোন সময় ব্যাটালিয়ন/কোম্পানী/বিওপি কমান্ডার পর্যায়ে যোগাযোগ/পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে শান্তিপূর্ণভাবে সমাধানে একমত হন এবং অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে সৌজন্যমূলক পতাকা বৈঠক সমাপ্ত হয়।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো পড়ুন
Close
Back to top button