তানোররাজশাহী সংবাদ

তানোর স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ছাদে গাঁজা চাষ, কেয়ার টেকার আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীর তানোর উপজেলার বাধাইড় ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ছাদে উপরে টপে লাগানো গাঁজা গাছ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে থেকে গাঁজার গাছগুলো উদ্ধার করেন মুণ্ডুমালা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ। গাঁজা গাছ লানোর অপরাধে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অস্থায়ী কেয়ারটেকার আটক করা হয়। ফাড়িতে আনা হয় ফার্মাসিস আমিনুল ইসলামকেও।

তবে কেয়ার টেকার ফারুক হোসেন কে আটক দেখানো হলেও স্বাস্থ্য কমপ্লে´ এর দায়িত্বপ্রাপ্ত ফার্মাসিস আমিনুল ইসলামকে কয়েক ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে সোমবার সন্ধা সাড়ে ৭টার সময় ছেড়ে দিয়েছে ফাড়ি পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকালে এলাকা বাসির ৯৯৯ নম্বরে কল করে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ছাদে গাঁজা চাষ হচ্ছে এমন অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তানোর থানার মুণ্ডুমালা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ সোমবার সরেজমিন গিয়ে স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ছাদে ফুলের টপে গাঁজার গাছ চাষের সত্যতা পান। পরে গাঁজার গাছসহ অস্থায়ী কেয়া টেকার জুমারপাড়া গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে ফারুক হোসেন (২৫) কে আটক করে ফাড়িতে আনা হয়।

এলাকাবাসি জানান, কেয়ার টেকার ফারুক একজন গাঁজা ব্যবসায়ী। দীর্ঘদিন ধরে স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ছাদে নিরাপদের সে গাঁজা চাষ করে আসছে। এখানে গাঁজা বিক্রি করে যে আয় হয় তার একটি অংশ ভাগ পান ফার্মাসিস আমিনুলও। অথচ তাকে আটক না করে ছেড়ে দিলেন পুলিশ।

অভিযুক্ত বাধাইড় ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ফার্মাসিস আমিনুল ইসলাম বলেন, গাঁজা চাষের বিষয়টি তিনি জানতেন না। তিনি কোন মতে জড়িত নয় দাবি করে বলেন, পুলিশ তদন্ত করলে সঠিক তথ্য বেরিয়ে আসবে।

রাজশাহীর জেলা পরিবার পরিকল্পনার সহকারী পরিচালক(এডি) তাসিকুল হক বলেন, বাধাইড় ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ছাদে গাঁজা চাষ হচ্ছে বিষয়টি সম্পর্কে তিনি অভিহত নয়, তবে তদন্ত করা হবে। প্রমাণ হলে সেখান কার স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তানোর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) রাকিবুল হাসান জানান, কেয়ারটেকার ফারুকের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্ততি চলছে। ফার্মাসিস আমিনুল ইসলামের জড়িত থাকার বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। কেয়ার টেকার ফারুকের সঙ্গে যদি অন্য কাউকে জড়িত থাকার প্রমান পাওয়া তবে তার বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button