তানোররাজশাহী সংবাদ

তানোরে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেলো দুই স্কুল ছাত্রী     

তানোর প্রতিনিধি:
রাজশাহীর তানোরে অষ্টম শ্রেনীতে পড়ুয়া দুই ছাত্রীর বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দিল তানোর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা। তবে দুই বর পক্ষের লোকজন প্রশাসনের লোকজন থেকে বিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যান।

দুই বিয়ে বন্ধর ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে তানোর উপজেলার চান্দুড়িয়া হাড়দো সিলিমপুর গ্রামে। পৃথক পৃথক ভাবে একই গ্রামের দুই ছাত্রী বিয়ের আয়োজন করেন নিজ নিজ পরিবারের লোকজন।

জানা গেছে, হাড়দো সিলিমপুর গ্রামের গোলাম আলী মেয়ে মোসা: শাহিনা খাতুন (১৪) এবং একই গ্রামের কালাম আলীর মেয়ে জান্নাতুন ফেদ্দোস (১৪) এরা দুই ছাত্রী বাগধানী উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্রী। গোলাম আলী মেয়ে শাহিনা খাতুনের বিয়ে ঠিক হয় বসন্তপুর গ্রামে এবং কালাম আলীর মেয়ে জান্নাতুন ফেদ্দোসের বিয়ে ঠিক হয় হাড়দো গ্রামে।

পৃথক পৃথক দুইটি বিয়ের অনুষ্ঠানে বর পক্ষের লোকজন মেয়ের বাড়িতে হাজির হয়। জুম্মার নামাজের পর বিয়ে হবার কথা ছিল।

এরি মধ্যে দুপুর ১২টার দিকে বিয়ের বাড়িতে তানোর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাসহ পুলিশ হাজির হন। প্রশাসনের লোক দেখে দুই বরসহ তাদের লোকজন পালিয়ে যায়।

তানোর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা নাসরীন বানু বলেন, ফোনে বিষয়টি শোনার পর দুইটি বাল্য বিয়ে বন্ধ্য করি। মেয়ে দুটি অষ্টম শ্রেনী’র ছাত্রী। তাদের পিতা-মাতা মুচলেকা দিয়েছেন। বাল্যবিয়ে তারা দিবেন না।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button