সংবাদ সারাদেশসারাদেশ

পরীক্ষার খাতায় ফেইসবুকের ভাষা লিখেছে শিক্ষার্থীরা

সংবাদ চলমান ডেস্ক: ২০১৯ সালের মে মাসে সেকেন্ডারি অ্যাডুকেশন সার্টিফিকেট (এসইসি) পরীক্ষায় অংশ নেয়  মাল্টার তিন হাজার ৮৮৫ শিক্ষার্থী। সেই সব শিক্ষার্থীর খাতা মূল্যায়ণ করতে গিয়ে পরীক্ষকদের চোখ ছানাবড়া হয়। খাতায় ফেইসবুকে ব্যবহার করা ভাষা দেখতে পেয়ে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যত নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তারা। সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীদের খারাপ ফলাফলের জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও ইন্টারনেটের প্রভাবকে দায়ী করা হয়েছে।

খাতা মূল্যায়নের বার্ষিক প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে এমন সংবাদ প্রকাশ করেছে টাইমস অব মাল্টা। ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়, পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে শেষ পর্যন্ত দুই-তৃতীয়াংশই উচ্চতর ধাপে পড়ার যোগ্যতা অর্জন করেছে। তবে পরীক্ষায় খাতায় তাদের ভাষা, বিশেষ করে ভুল বানান নিয়ে চরম উদ্বিগ্ন পরীক্ষকরা।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, মাল্টায় এসইসিতে অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীদের অবশ্যই মনোযোগের সঙ্গে অধ্যয়ন করতে হবে।  পাশাপাশি ইন্টারনেটের প্রভাব থেকে দূরে থাকতে হবে। এমনকি ফেইসবুকে ব্যবহার করা ভাষা পরীক্ষায় গ্রহণযোগ্য হবে না বলে মত দেন পরীক্ষকরা।

পরীক্ষকদের প্রতিবেদন অনুযায়ী, শিক্ষার্থীদের মধ্যে দুই হাজার ৪১৪ জনকে গ্রেড ১ থেকে গ্রেড ৫ নম্বর দেয়া হয়। তবে ৮০০-র মতো শিক্ষার্থীকে শ্রেণি বিভাগ করা সম্ভব হয়নি। ২০১৮ সালের পরীক্ষায়ও এমন ঘটনা লক্ষ্য করা গেছে।

পরীক্ষার্থীদের অনেকে কথা বলার ভাষা ও লেখার ভাষা বুঝতে পারেনি। অনেকে বাজে ভাষা ব্যবহার করেছেন। পাশাপাশি মাল্টার ভাষার অক্ষরগুলোর সঙ্গে ইতালীয় ও ইংরেজি অক্ষরের মিশ্রণ ঘটিয়েছেন অনেকে। এর মধ্যে প্রবন্ধ লেখায় সবচেয়ে বেশি ভুল হয়েছে। ব্যাকরণ অংশে পূর্ণ নম্বর অর্জন করতে পারেনি কোনো শিক্ষার্থী। এ বিষয়েই সংখ্যাগরিষ্ঠ শিক্ষার্থী দুর্বল বলেও প্রতিবেদনে মন্তব্য করেন পরীক্ষকরা।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button