সংবাদ সারাদেশসারাদেশ

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় একজন নজরদারিতে

সংবাদ চলমান ডেস্ক : রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় একজনকে চিহ্নিত করে নজরদারিতে রেখেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

মঙ্গলবার দিনগত মধ্যরাতে গণমাধ্যমকে এমন তথ্য দিয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর একটি সূত্র জানিয়েছে, ওই ব্যক্তিকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। সম্পূর্ণ নিশ্চিত হওয়ার পর তাকে গ্রেফতার করা হবে। এরপর গণমাধ্যমকে বিস্তারিত জানানো হবে।

গত রোববার সন্ধ্যায় কুর্মিটোলায় ধর্ষণের শিকার হন ঢাবির ওই ছাত্রী। তার দেয়া চেহারার বর্ণনা অনুযায়ী ধর্ষকের স্কেচ আঁকা হয়। অপরদিকে মঙ্গলবার কুর্মিটোলা ও র‌্যাডিসন হোটেলের আশেপাশের এলাকার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়। বিভিন্ন সংস্থা থেকে সেসব ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে।

এছাড়া ভিকটিমের বাবার করা মামলার এজাহারে ধর্ষকের বর্ণনা উল্লেখ করা হয়েছে, অজ্ঞাতনামা একজন আসামি, তার বয়স আনুমানিক ২৫ থেকে ৩০ বছর হবে। সে লম্বা। তার গায়ের রং শ্যামলা, স্বাস্থ্য মাঝারি। পরনে পুরাতন জিন্স ফুলপ্যান্ট ও জ্যাকেট ছিল। তার চুল ছোট ছোট এবং পায়ে স্যান্ডেল ছিল।

সব কিছু আমলে নিয়ে ধর্ষককে চিহ্নিত করতে একযোগে মাঠে নেমেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বিভিন্ন ইউনিট। বিষয়টি নিয়ে ছায়া তদন্তও চলছে।

জানা গেছে, ওইদিন বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে শেওড়া যাচ্ছিলেন ওই ছাত্রী। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তিনি কুর্মিটোলায় বাস থেকে নামার পর এক ব্যক্তি তার মুখ চেপে পাশের নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে অজ্ঞান করে ধর্ষণ ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়।

রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফিরলে তিনি বিষয়টি বুঝতে পারেন। পরে সেখান থেকে অটোরিকশায় বাসায় ফেরার পর রাত ১২টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হয়। এরপর তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়।

পরদিন ৬ জানুয়ারি ছাত্রীর বাবা অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামি করে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন। মামলাটি পরে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশে (ডিবি) স্থানান্তর করা হয়।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button