সংবাদ সারাদেশসারাদেশ

যুবলীগের নতুন চেয়ারম্যান পরশ, সম্পাদক নিখিল

সংবাদ চলমান ডেস্ক:
যুবলীগের নতুন চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন শেখ ফজলে শামস পরশ। তিনি যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির বড় ছেলে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার কালরাতে শেখ ফজলে শামস পরশের বাবা-মাও শহীদ হয়েছিলেন। তার ছোট ভাই ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ঢাকা-১০ আসনের এমপি।

সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত করা হয়েছে মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিলকে। তিনি ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সভাপতি ছিলেন।

শনিবার (২৩ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলনে নতুন নেতৃত্বের নাম ঘোষণা করা হয়। সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশন শেষে নতুন নেতৃত্বের নাম ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে অবৈধ পন্থায় অঢেল সম্পত্তি ও সরকারি দলের ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ বেশ কিছু যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। নির্দিষ্ট অভিযোগ থাকায় যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মূলত দখল, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, অস্ত্রবাজি, ক্যাডারবাজি, দুর্নীতি, ক্যাসিনোসহ বিভিন্ন বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকায় সরকারের শুদ্ধি অভিযানে আটক ও পদহারা হন সংগঠনের একাধিক প্রভাবশালী নেতা। সংগঠনের নেতাকর্মীদের এমন কর্মকাণ্ডের সাথে যুক্ত থাকার ক্ষুব্ধ হন বঙ্গবন্ধুকন্যা।

স্বাধীনতার পরপরই ১৯৭২ সালের ১১ নভেম্বর যুবকদের সংগঠিত করার লক্ষ্য নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে যুবলীগ গঠন করেন তার ভাগ্নে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক শেখ ফজলুল হক মনি। ১৯৭৪ সালে যুবলীগের প্রথম কংগ্রেসে তিনিই চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

সর্বশেষ ২০১২ সালে ষষ্ঠ কংগ্রেসে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পান শেখ মনি ও শেখ সেলিমের ভগ্নিপতি ওমর ফারুক। তারপর ছয় বছর নির্বিঘ্নে কাজ করে এলেও সম্প্রতি ক্যাসিনোকাণ্ডে বড় ধাক্কা খান ওমর ফারুক; সেই সঙ্গে সমালোচনায় নাকাল হয় যুবলীগ।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button