সংবাদ সারাদেশসারাদেশ

বিদায়ের বেলায় কাঁদলেন এসপি হারুন

 নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:
বিদায়ের সময় কাঁদলেন পুলিশ হেডকোয়ার্টারে সদ্য বদলি হওয়া নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) দুপুরে জেলা পুলিশ লাইনসে বিদায়ী সংবর্ধনায় বক্তৃতাকালে তিনি এক পর্যায়ে কান্না করে দেন।

বক্তব্যে পারটেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান এমও হাশেমের ছেলের কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগের প্রেক্ষিতে এসপি হারুন বলেন, সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কাজ করতে গিয়ে সমালোচিত হয়েছি, আসলে এটা তদন্তে বের হবে। এছাড়া আমার কোনো সহকর্মীর দিকে পিস্তল তাক করবে সেটা তো হতে পারে না।

তাই ওই ব্যক্তি কত বড় সম্পদশালী বা শক্তিশালী সেটা দেখিনি। কিন্তু বলা হয়েছে, টাকা দাবি করেছি। আসলে মামলা হয়েছে, পুলিশ রেইড দিয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ছেলেকে আনা হয়েছিল, মা স্বেচ্ছায় এসেছে। এগুলো আপনারা জানেন। তবুও বললাম।

তিনি আরও বলেন, অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটেছে। কথা দিয়ে নয় মন থেকে যেটা চেয়েছি তাই করেছি। নারায়ণগঞ্জে পুলিশের ইমেজ বৃদ্ধি পেয়েছে। আমাদের সহযোগিতা করার জন্য ধন্যবাদ সাংবাদিক ভাইদের।

সদ্য বিদায়ী এসপি বলেন, নারায়ণগঞ্জে থাকাবস্থায় মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, ভূমিদস্যুর বিরুদ্ধে কাজ করেছি। নারায়ণগঞ্জে ২ হাজার পুলিশ কাজ করছে। কিছু কিছু ভুল থাকতেই পারে। তারপরও কেউ ভুল করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর এ্যাকশন নিয়েছি। সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজের পক্ষে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, এমপি, মন্ত্রী কেউ তদবির করেন নাই। এটা আমাদের ভালো লেগেছে।

বক্তৃতার সময় খুব আবেগী হয়ে পড়েন জেলা পুলিশের সাবেক উর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা। এক পর্যায়ে কান্না করেন এসপি হারুন।

জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে আয়োজিত বিদায়ী সংবর্ধনায় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, র‌্যাব-১১ এর সিইও কর্ণেল কাজী শামসের উদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম, আব্দুল্লাহ আল মামুন, নূরে আলম, সুবাস সাহা, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল প্রমুখ।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button