সংবাদ সারাদেশসারাদেশ

দুই ধারায় ওসি মোয়াজ্জেমের ৮ বছরের সাজা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
ফেনীর মাদরাসা ছাত্রী নুসরাতের জবানবন্দির ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়ানোর মামলায় সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমকে ৮ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া ১৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন ঢাকার সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনাল।

বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) দুপুর ২টা মিনিটে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আল সামছ জগলুল হোসেনের আদালত এ রায় প্রদান করেন।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৬ ধারায় ওসি মোয়াজ্জেমকে ৫ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। একই আইনের ২৯ ধারায় আসামি আরও তিন বছরের কারাদণ্ড ও ৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ড দেন ট্রাইব্যুনাল। জরিমানার টাকা অনাদায়ে আসামিকে আরও ছয়মাসের কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে।

ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৬, ২৯ ও ৩১ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছিল। এর মধ্যে আসামির বিরুদ্ধে ৩১ ধারায় আনা অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি।

এর আগে ২০ নভেম্বর বাংলাদেশ সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস-শামস জগলুল হোসেন রায়ের জন্য এ দিন নির্ধারণ করেন।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের গত ২৭ মার্চ নুসরাত জাহান রাফিকে শ্রেণিকক্ষে নিয়ে যৌন নিপীড়ন করেন মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা। এমন অভিযোগ উঠলে দুইজনকে থানায় নিয়ে যান ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন। এসময় ওসি নিয়ম ভেঙে জেরা করেন এবং নুসরাতের বক্তব্য ভিডিও করেন।

মামলায় অভিযোগে বলা হয়, ওসি মোয়াজ্জেম অনুমতি ছাড়া নিয়মবহির্ভূতভাবে নুসরাতকে জেরা এবং তা ভিডিও করেন। পরে ওই ভিডিও ফেসবুক ও ইউটিউবসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন তিনি।

ভিডিওতে আরও দেখা যায়, ওসি মোয়াজ্জেম অত্যন্ত অপমানজনক ও আপত্তিকর ভাষায় নুসরাতকে একের পর এক প্রশ্ন করে যাচ্ছেন। নুসরাতের বুকে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানি করা হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নও করতে শোনা যায় ওসি মোয়াজ্জেমকে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button