সংবাদ সারাদেশসারাদেশ

জুতা পায়ে শহীদ মিনারে চেয়ারম্যান!

সংবাদ চলমান ডেস্ক: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় এক চেয়ারম্যানসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে জুতা পায়ে শহীদ মিনারের বেদিতে উঠে ফটোসেশন করার অভিযোগ উঠেছে। জুতা পায়ে শহীদ মিনারে বসে থাকার কয়েকটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়েছে। এই ঘটনায় ফেসবুকসহ বিভিন্ন মহলে সমালোচনার ঝড় বইছে।

জানা গেছে, জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে ওঠা ওই চেয়ারম্যানের নাম আল আমিন সরকার ইমন। তিনি উপজেলার পূর্ণীমাগাতী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে শহীদ মিনারে ফুল নিয়ে পূর্ণিমাগাঁতী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল আমিন সরকারের নেতৃত্বে পূর্ণিমাগাঁতী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে নিয়ে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে তারা বাংলাদেশের পতাকার আদলে পাঞ্জাবি গায়ে জুতা পায়ে শহীদ মিনারের বেদীতে বসে ফটোসেশন করেন।

এ সময় পূর্ণিমাগাঁতী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মমিন ভূঁঞা, যুবলীগের আহ্বায়ক মনসুর রহমান, ছাত্রলীগের সভাপতি আল আমিন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহবায়ক রতন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মো. টুটুল, ৪ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি আব্দুর রউফসহ অনেক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

জুতা পায়ে শহীদ মিনারের বেদিতে ওঠে ফটোসেশনের ঘটনায় ফেসবুকসহ বিভিন্ন মহলে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। এ ঘটনায় এলাকাবাসী বিস্ময় ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে ফটোসেশন করা চেয়ারম্যান আল আমিন সরকার ইমনের কাছে এ বিষয়ে জানতে মুঠোফোনে কয়েকবার কল দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান বলেন, বিষয়টি নিঃসন্দেহে দায়িত্বহীনতার পরিচায়ক। স্বাধীন বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা সবার দায়িত্ব। এতে কোনো কার্পণ্য করার সুযোগ নেই, এটা খুবই দুঃখজনক। বিষয়টি মাত্র জানলাম, আমি অবশ্যই এটা খতিয়ে দেখবো কেন এমনটা করা হলো

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button