সংবাদ সারাদেশসারাদেশ

কারাগারে নির্যাতিতাকে বিয়ে করলো যুবক

সংবাদ চলমান ডেস্ক: হাতে মেহেদি আর গলায় মালা। বিয়ের পিঁড়িতে বসে আছে কনে৷ তার সামনে গলায় মালা ও মাথায় টুপি পরে বসা পাত্র। মুসলিম নিয়ম মেনে বিয়ে পড়াচ্ছেন কাজী। আর সুস্বাদু রান্নার গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে বসিরহাটের কারাগারে।

এভাবেই বৃহস্পতিবার দুপুরে পশ্চিমবঙ্গের বসিরহাট কারাগারে বন্দি থাকা এক যুবকের সঙ্গে নির্যাতিতার বিয়ের সাক্ষী রইলেন পুলিশকর্তা থেকে আদালতের আইনজীবীরা।

পাত্রের নাম মইদুল গাজি। পেশায় শ্রমিক ওই যুবকের বাড়ি হাসনাবাদ থানার চকপাটলি গ্রামে। আর পাত্রী একই গ্রামের মমতাজ খাতুন।

কয়েক মাস আগে মমতাজ বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগ এনেছিল পাত্রের বিরুদ্ধে। এরপর তাকে গ্রেফতার করে হাসনাবাদ থানার পুলিশ। তারপর থেকে জেলেই ছিল মইদুল। আর সেখানে বসেই নির্যাতিতাকে বিয়ে করার কথা আদালতে জানিয়েছিল সে৷ এরপর বৃহস্পতিবার আদালতের নির্দেশে বিয়ের আয়োজন হল।

জানা গেছে, মমতাজ ও মহিদুল একই গ্রামের বাসিন্দা। দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে ভালবাসার সম্পর্ক ছিল। মাস কয়েক আগে মমতাজ বিয়ে করার কথা মহিদুলকে বললে সে অস্বীকার করে। এরপর ২০১৯ সালের ৮ ডিসেম্বর হাসনাবাদ থানার দ্বারস্থ হয় মমতাজ। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগ করে মহিদুল গাজির বিরুদ্ধে। তবে বৃহস্পতিবার সেই সব অভিযোগ ভুলে নতুন করে পথচলা শুরু করল তারা।

বসিরহাট থানা সূত্রে জানা গেছে, এখানে এই প্রথম বিয়ে হচ্ছে। তাই বিয়ের আসরে শামিল হয়েছে কয়েদিরাও। বিয়ের জায়গার পাশেই চলছে খাওয়া-দাওয়ার অনুষ্ঠান। মেনুতে রয়েছে ভাত, মুড়িঘণ্ট, ডাল, বেগুনি, মাছ, চিকেন কষা, চাটনি, পাঁপড়, রসগোল্লা ও সন্দেশ।
বিয়ে শেষে একগাল হাসি নিয়ে বাড়ি ফিরল নব দম্পতি।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পড়ুন
Close
Back to top button