সংবাদ সারাদেশসারাদেশ

এক নববধূকে নিয়ে দুই স্বামীর মধ্যে মারামারি

বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ার ধুনট উপজেলায় এক নববধূকে নিয়ে দুই স্বামীর মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় জনতা ঘটনাস্থল থেকে নববধুসহ স্বামীর দাবিদার দুই যুবককে ধরে থানায় সোপর্দ করেছে।

শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। নববধূর নাম রুমানা খাতুন (১৮)। সে উপজেলার হেউটনগর গ্রামের আফিজার রহমানের মেয়ে।

এছাড়া স্বামীর দাবিদার দুই যুবকের মধ্যে উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের নবিনগর গ্রামের আলমগীর হোসেনের ছেলে জুয়েল রানা (২৬) ও একই এলাকার বিলচাপড়ি গ্রামের কামাল হোসেনের ছেলে কাজল মিয়া (২২)। স্থানীয় সূত্রে জানা, প্রায় দুই মাস আগে জুয়েল রানার সাথে পারিবারিক সম্মতিতে রুমানা খাতুনের বিয়ে হয়।

বিয়ের পর এক মাস ঘর-সংসার করে বাবার বাড়ি বেড়াতে আসেন রুমানা। এরপর আর স্বামীর বাড়িতে ফিরে যায়নি রুমানা। তবে রুমানাকে বাড়িতে নেওয়ার জন্য অনেক চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন জুয়েল রানা।

এ অবস্থায় শুক্রবার বিকেলের দিকে রুমানাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে কাজল মিয়ার হাত ধরে বেড়াতে দেখে জুয়েল রানা। এসময় রুমানাকে স্ত্রী দাবী করে কাজলকে মারধর করে জুয়েল। তখন কাজলও পাল্টা জুয়েলকে মারধর করে। বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে আসলে তাদের আটক করে থানায় সোপর্দ করে। নববধু রুমানা খাতুন এ প্রতিবেদক- কে বলেন, মা-বাবা আমার অমতে প্রায় ২ মাস আগে জুয়েলের সাথে আমাকে বিয়ে দেয়।

কিন্ত জুয়েলকে পছন্দ না হওয়ায় এক মাস আগে আমি একাই কাজলকে বিয়ে করেছি। তবে জুয়েল রানার সাথে আমার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়নি। তারপরও আমি কাজলের সাথে ঘর সংসার করতে চাই। জুয়েল রানা ও কাজল মিয়া এ প্রতিবেদক- কে বলেন, রুমানা খাতুন যে কথা বলেছে সেটাই সঠিক।

তবে দুই যুবকই রুমানাকে স্ত্রী দাবী করেন এবং দুই যুবকই রুমানাকে নিয়ে ঘর সংসার করতে আগ্রহী। ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল হোসেন এ প্রতিবেদক-কে বলেন, নববধু রুমানা জুয়েল রানাকে তালাক দিয়ে পূর্বের প্রেমিক কাজলকে নিয়ে ঘরসংসার করবে বলে জানায়, তাই মেয়ের অভিভাবক কে মেয়েকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে, ছেলের অভিভাবক কে ছেলেকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে,সম্ভাবত বাসায় গিয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হবে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button