লাইফস্টাইল

প্রতিনিয়তই ২০৬টি হাড়ের ব্যবহার করতে হবে

সংবাদ চলমান ডেস্কঃ
কর্মক্ষম হিসেবে প্রতিনিয়ত জীবনযাপন করার জন্য শরীরের হাড়, জোড়া বা জয়েন্টকে সুস্থ রাখা অত্যন্ত প্রয়োজন। কিন্তু অসচতেনতার কারণে কিংবা শারীরিক বিভিন্ন রোগের কারণে, এমনকি অপ্রত্যাশিত দুর্ঘটনার কারণে হাড়, জোড়া কিংবা জয়েন্ট আক্রান্ত হতে পারে।

এ বিষয়ে আরটিভির স্বাস্থ্য-বিষয়ক ‘সেভলন সুস্থ থাকুন’ অনুষ্ঠানে কথা বলেছেন প্রখ্যাত ট্রমা ও অর্থোপ্লাস্টি সার্জন ডা. মো. আমজাদ হোসেন।

প্রশ্নঃ শীতকালে কুয়াশার মধ্যে অনেক ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে থাকে বলেই জানা যায়। এছাড়া শরীরেও শীতকালে নানা ধরনের ব্যথা বেড়ে যায়। শীতের শুরুতে বা শীতকালে শরীরকে ফিট রাখার জন্য কি করতে হবে?

উত্তরঃ শরীরকে সুস্থ ও মনকে প্রফুল্ল রাখতে গেলে নিয়মিত ব্যায়াম করার কোনো বিকল্প নেই। আগের দিনের মানুষ যেভাবে হাটা চলা, কুয়া থেকে পানি তোলা ইত্যাদি কায়িক পরিশ্রম করত, সেগুলো এখন ধীরে ধীরে কমে গেছে। এর ফলে আমাদের শরীরের মুভমেন্ট চলে গেছে। ছয়শ পঞ্চাশটি মাংসপেশি এবং ২০৬টি হাড় এবং ৩৩০টির মতো জয়েন্ট শরীরে রয়েছে। প্রতিনিয়তই এসব হারের কায়িক ব্যবহার করতে হবে। আর এগুলোর ব্যবহার মানে এগুলো নাড়াতে হবে।

প্রশ্নঃ মেডিকেল সায়েন্সে মেকানিকেল প্রবলেম নামে একটি কথা আছে। বসা, চলা, হাটা, শোয়া এগুলো নিয়ম না মেনে করার কারণে আমাদের যে ব্যথা হচ্ছে নিয়মিত, এ বিষয়ে আপনি কিছু বলুন।

উত্তরঃ এগুলো প্রতিকার করার ধরাবাঁধা কোনও নিয়ম নেই। মানুষের শরীরটাতো একটি ইঞ্জিনিয়ারিং এর সিস্টেমের মতো। এটাকে বায়ো ইঞ্জিনিয়ারিং বলা চলে। একে যদি অ্যাকটিভ রাখতে দেখা যায়, তাহলে অবশ্যই এটি ভালো থাকবে এবং সেও ভালো থাকবে। মনে রাখতে হবে, মাংসগুলো আসলে হাড়কে চালায়।

প্রশ্নঃ গ্রামে অনেক মানুষই হাতে পায়ে ব্যথা হলে বা জয়েন্টে পেইন হলে প্রায়ই খড়কুটো জ্বালিয়ে আগুনের মধ্যে হাত-পা দেই এবং গরম পানি দিয়ে সেক দেয়, এবিষয়ে মেডিকেল কী বলে?

উত্তরঃ আমাদের আগের দিনের মানুষ কিন্তু বাচ্চাদের শীতকাল হোক বা গরমকাল হোক রৌদ্রে রাখত, এর কিন্তু বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা আছে। কারণ হল ভিটামিন ডি কিন্তু সে সূর্যের আলো থেকেই আসে। আর তাপ বা গরম এটা শরীরের জন্য সবসময়ই ভালো।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button