রাজশাহীরাজশাহী সংবাদরাজশাহী সংবাদ

রাজশাহীতে বঙ্গমাতার ৯২ তম জন্মবার্ষিকী পালন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

আজ ৮ আগস্ট সোমবার রাজশাহীতে নানান আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২ তম জন্মদিন।

এই দিনটি উপলক্ষে আজ সোমবার সকাল ১০ টায় রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ, বেলা ১১ টায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন ও জেলা আওয়ামী লীগ আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। এছাড়াও রাজশাহী জেলা প্রশাসন ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন দিনটি পালন করে।

এর আগে সকাল ৮ টার দিকে রাজশাহী জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শিল্পকলা অ্যাকাডেমি মিলনায়তনে মহীয়সী বঙ্গমাতার চেতনা, অদম্য বাংলাদেশের প্রেরণা- এই শ্লোগান সামনে রেখে জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।

এরপর ৩০ জন দরিদ্র নারীকে দুই হাজার টাকা করে আর্থিক অনুদান দেওয়া হয়েছে।

বঙ্গমাতার ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে রাজশাহীর ৯৫ জন অসহায় নারীকে সেলাই মেশিন দেওয়া হয়েছে।

উক্ত আলোচনা সভায় রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার জিএসএম জাফরউল্লাহ্ এনডিসি।

সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) আব্দুল বাতেন, মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. আবু কালাম সিদ্দিক, জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) এবিএম মাসুদ হোসেন, মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শাহীন আকতার রেনী, রাজশাহী জাতীয় মহিলা পরিষদের চেয়ারম্যান বেগম মর্জিনা পারভিন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শবনম শিরীন।

এছাড়াও সাবেক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপিকা জিন্নাতুন নেছা তালুকদার, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) আবু তাহের মো. মাসুদ রানা, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) জিয়াউল হক, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন ও আইসিটি) এএনএম মঈনুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার পরিচালক এনামুল হক, উপ-পরিচালক (স্থানীয় সরকার) শাহানা আখতার জাহান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মুহাম্মদ শরিফুল হকসহ রাজশাহী জেলার বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এ আলোচনায় সভায় বক্তরা জানান,‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের ধারাবাহিক ইতিহাসের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিলেন।সরাসরি রাজনীতির সাথে যুক্ত না থেকেও বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক প্রেরণার সবচেয়ে বড় উৎস ছিলেন তিনি।

দেশ ও জাতির মঙ্গলের জন্য নিজেকে জীবনের শেষমুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর পাশে থেকেছেন।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button