রাজশাহীরাজশাহী সংবাদ

আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটের নতুন ভবন উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটের নতুন ভবন উদ্বোধন করলেন রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের সম্মানিত পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক মহোদয়।

আজ ১৬ জানুয়ারি বেলা সাড়ে ১১ টায় রাজশাহী মহানগরীর সিএন্ডবি মোড়ে অবস্থিত আরএমপির পুরাতন সদরদপ্তরে (নির্মাণাধীন নতুন সদরদপ্তর) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আরএমপির সম্মানিত পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক মহোদয় উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটের নতুন ভবন উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধীন অনুষ্ঠানে পুলিশ কমিশনার মহোদয় বলেন, প্রযুক্তি নির্ভর অপরাধ কমাতে এবং প্রযুক্তির মাধ্যমে অধরাধীকে গ্রেফতার করতে সাইবার ক্রাইম ইউনিট চালু করা হয়েছে।

পুলিশ কমিশনার তাঁর বক্তব্যে আরো বলেন, গত এক বছরে সাইবার ক্রাইম ইউনিট ১৪০৫ টি অভিযোগের মধ্যে ১৩৩৫ টি অভিযোগ নিস্পত্তি করেছে।

সেই সাথে নারীদের বিভিন্ন স্পর্শকাতর ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ব্লাকমেইল করা, ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক করা, বিভিন্ন ভূয়া ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে পর্ণো ছবি ও ভিডিও পাঠানোর মত প্রায় ৩৬০ টিরও অধিক অভিযোগ নিস্পত্তি করেছে।

এই ভাবেই রাজশাহী মহানগরবাসীর জন প্রত্যাশা পূরণ তথা জনসন্তুষ্টি অর্জন করতে সক্ষম হয় আরএমপি’র সাইবার ক্রাইম ইউনিটি।

উল্লেখ্য, জনাব মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক মহোদয় রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশ কমিশনার হিসেবে যোগদানের পরপরই বলেছিলেন “রাজশাহী মহানগরীকে নিরপাত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হবে। মহানগরীতে কোন অপরাধ থাকবে না। সেই লক্ষে বিভিন্ন ধরণের কর্মসূচি গ্রহণ করেন।

এর অংশ হিসেবে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ শাহমখদুম থানা কম্পাউন্ড আরএমপি অস্থায়ী সদরদপ্তরে সাইবার ক্রাইম ইউনিটের উদ্বোধন করেন।

যাত্রার শুরু থেকেই সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহকারি পুলিশ কমিশনার জনাব উৎপল কুমার এর নেতেৃত্বে সাইবার ক্রাইম ইউনিট সাফল্য দেখিয়ে আসছে।

বিশেষ করে মোবাইল কললিষ্ট, ফেসবুক, ইমো, ম্যাজেঞ্জার ইত্যাদি পর্যালোচনা করে আরএমপি’র থানাসমূহের বিভিন্ন অপহরণ মামলার ভিকটিম উদ্ধার, প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ, মাদক ব্যবসায়ীর অবস্থান সনাক্ত করা, ভূয়া পুলিশ পরিচয়ে টাকা আত্মসাৎ, ছিনতাইকারী গ্রেফতার, জঙ্গি গ্রেফতার, ডিজিটাল প্রতারণার মাধ্যমে টাকা আত্মসাৎ, হারানো মোবাইল উদ্ধার, অপহরণ, খুন, চাঁদাবাজসহ বিভিন্ন মামলার রহস্য উদঘাটনে সাফল্যের সাথে কাজ করে যাচ্ছে সাইবার ক্রাইম ইউনিট।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) জনাব মোঃ মজিদ আলী বিপিএম, উপ পুলিশ কমিশনার (সদর) জনাব মোঃ রশীদুল হাসান পিপিএম ও উপ পুলিশ কমিশনার (বোয়ালিয়া) জনাব মোঃ সাজিদ হোসেন, আরএমপির উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button