জাতীয়সংবাদ সারাদেশ

মেডিকেল শিক্ষার্থীদের মরণোত্তর দেহ দান করলেন শিক্ষক শচীন্দ্রনাথ

সংবাদ চলমান ডেস্কঃ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের অসাম্প্রদায়িক সোনার বাংলা বিনির্মাণে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য মরণোত্তর দেহ দান করে গেলেন, সাবেক শিক্ষক শচীন্দ্রনাথ রায়। তার মৃত্যুর পর সন্তানরা বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজের কর্তৃপক্ষের কাছে শচীন্দ্রনাথের মরদেহ হস্তান্তর করেন।

গত (১ ফেব্রুয়ারি) বার্ধক্যজনিত কারণে নগরীর কাউনিয়া ক্লাব রোডের বাসায় মৃত্যু হয় শচীন্দ্রনাথ রায়ের।

পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার বৌলাকান্দা বদরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষক ছিলেন শচীন্দ্রনাথ রায়।

শেষ ইচ্ছে অনুযায়ী তার মরদেহ বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজে শিক্ষার জন্য দান করা হয়। মরণোত্তর ধর্মীয় ক্রিয়াদী সম্পন্ন শেষে ২ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. মনিরুজ্জামান শাহিনের কাছে তার মরদেহ হস্তান্তর করা হয়।

শচীন্দ্রনাথ রায়ের ছেলে সহকারী অধ্যাপক মানস কুমার রায় বলেন, আমার বাবা একজন জাতি গড়ার কারিগর। জ্ঞানের বাতিঘর হয়ে আদর্শ এই শিক্ষক জীবনের বেশিরভাগ সময় শিক্ষকতার মহান পেশায় ব্রত ছিলেন। আমৃত্যু তিনি নিঃস্বার্থভাবে মানবকল্যাণে কাজ করে গেছেন। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের অসাম্প্রদায়িক সোনার বাংলা বিনির্মাণে শিক্ষার্থীদের আদর্শ সোনার মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে পাঠদান করেছেন।

ঘরে ঘরে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিয়ে আলোকিত সমাজ ও রাষ্ট্র গঠনে তৃণমূলে বিশেষ ভূমিকা রাখা আমার বাবা শচীন্দ্রনাথ রায় মরণের পরও চিকিৎসা শিক্ষায় নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে গেছেন। মেডিকেলের শিক্ষার্থীদের জন্য তিনি তার মরণোত্তর দেহ দান করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন।

বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মনিরুজ্জামান বলেন, শচীন্দ্রনাথ রায়ের মরদেহ আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছেন তার পরিবারের লোকজন। এই দেহ দিয়ে চিকিৎসাবিজ্ঞান অধ্যয়নে উপকৃত হবে আগামী দিনের শিক্ষার্থীরা।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button