জাতীয়

ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকলে জরিমানা ২৫ হাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক: 
সারা দেশে কার্যকর হচ্ছে আলোচিত সড়ক পরিহন আইন-২০১৮। নতুন এ আইনে অপরাধের কঠোর শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে।

আইনে হেলমেট ছাড়া বাইক চালালে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে বলে জানা গেছে। এছাড়াও ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকলে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করার বিধান রাখা হয়েছে।

এর আগে এ ধরনের অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি ছিল চার মাসের কারাদণ্ড বা ৫০০ টাকা অর্থদণ্ড।

জানা গেছে, ১ নভেম্বর থেকে সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ কার্যকর করার জন্য গত ২২ অক্টোবর প্রজ্ঞপন জারি হয়। এরপর বিআরটিএ থেকে আইনটি কার্যকর করতে সকলের কাছে অনুরোধ জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রচার শুরু হয়েছে।

বিআরটিএ চেয়ারম্যান ড. কামরুল আহসান এরই মধ্যে সংশ্লিষ্ট নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের আইন কার্যকর করতে নির্দেশনা দিয়েছেন।

কর্তৃপক্ষ ছাড়া কোনও ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান বা সমিতি ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরি, প্রদান ও নবায়ন করলে অনধিক দুই বছর শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে। আর নিবন্ধন ছাড়া গাড়ি চালালে অনধিক ছয় মাসের জেল বা অনধিক ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রয়েছে।

আইনে প্রাণহাণির বিষয়ে সর্বোচ্চ দণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। জানা গেছে, নতুন আইনে বেপরোয়া বা অবহেলায় গাড়ি চালানোর কারণে কেউ গুরুতর আহত বা কারো প্রানহানি হলে অপরাধীর সর্বোচ্চ পাঁচ বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ৫ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে।

তদন্তে যদি দেখা যায় উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে চালক বেপরোয়া গাড়ি চালিয়ে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে, তাহলে দণ্ডবিধির ৩০২ ধারা অনুযায়ী শাস্তি দেওয়া হবে। অর্থাৎ সর্বোচ্চ সাজা হবে ফাঁসি। তবে এটা তদন্ত সাপেক্ষে এবং তথ্যের ওপর ভিত্তি করে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নির্ধারণ করবে। এটি অজামিনযোগ্য শাস্তি। আগের আইনে ছিল ৩ বছরের কারাদণ্ড ও তা জামিনযোগ্য।

এছাড়া ঝুঁকিপূর্ণ গাড়ি চালালে ছয় মাসের জেল বা অনধিক ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড দেওয়া হবে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button