কুমিল্লাসংবাদ সারাদেশ

কুমিল্লায় স্ত্রীকে হত্যার দায়ে, স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

কুমিল্লায় কাপড় ধুয়ে দিতে বলায় খালেদা আক্তার নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে স্বামী মোজাম্মেল হোসেন রাজুকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। 

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে এ রায় দেন কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ তৃতীয় আদালতের বিচারক রোজিনা খান। রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আদালতে অনুপস্থিত ছিলেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মো. মোজাম্মেল হোসেন রাজু কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শাটিষক গ্রামের নুরুন্নবী প্রকাশ নুর আলমের ছেলে। নিহত খালেদা আক্তার কুমিল্লা নাঙ্গলকোট উপজেলার পূর্ব দৈয়ারার মো. মোবারক হোসেনের মেয়ে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, প্রেম করে খালেদা আক্তারকে বিয়ে করেন মোজাম্মেল হোসেন রাজু। তাদের দাম্পত্যজীবনে মিম নামে তিন বছর বয়সী একটি কন্যাসন্তান ছিল। বিয়ের পর থেকেই মোজাম্মেল বেকার থাকায় খালেদা তার শিশু সন্তান মিমকে নিয়ে বাবার বাড়িতে থাকতেন। ২০১৮ সালের ২ নভেম্বর মোজাম্মেল তার শ্বশুরবাড়ি বেড়াতে আসেন। রাতে স্বামী-স্ত্রী ও শিশুসন্তান ভাত খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। পরদিন ভোরে স্বামী মোজাম্মেলকে কাপড় ধুতে বলেন খালেদা। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে খালেদার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেন মোজাম্মেল। পরে মরদেহ পুকুরঘাটের কাছে ফেলে রেখে পালিয়ে যান।

এ ঘটনায় মোজাম্মেল হোসেন রাজুকে আসামি করে নাঙ্গলকোট থানায় একটি হত্যা মামলা করেন নিহতের বাবা মো. মোবারক হোসেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) মো. সোহেল রানা তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে আসামি মোজাম্মেলকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেন। আদালতে আসামি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন। বৃহস্পতিবার এ ঘটনায় জড়িত একমাত্র আসামিকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট মো. আমিনুল ইসলাম ও অ্যাডভোকেট মো. নুরুল ইসলাম বলেন, এ রায়ে আমরা সন্তুষ্ট। আশা করছি, উচ্চ আদালত এ রায় বহাল রাখবেন।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button