রাজশাহী সংবাদ

শিক্ষার মান উন্নয়ন হবে আমাদের অন্যতম লক্ষ্য: রাজশাহীতে শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষার মান উন্নয়ন করাই হবে আমাদের অন্যতম লক্ষ্য। দেশের ১৩টি শতবর্ষী সরকারি কলেজ হবে সেন্টার অব এক্সিলেন্স। রাজশাহী কলেজও তার মধ্যে থাকবে। রাজশাহী কলেজে ছাত্রীনিবাস খুব দরকার। মেয়েদের অনেক কষ্ট করে থাকতে হচ্ছে।  একটা প্রশাসনিক ভবনও দরকার। একটা দশতলা ছাত্রীনিবাস হবে।

আজ শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী কলেজে (এইচএসসি) পর্যায়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের অ্যালামনাই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তেব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন,  এখন সময় শিক্ষার গুনগত মানের দিকে নজর দেওয়ার। ২০১৮ সালের নির্বাচনি ইস্তেহারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা করেছেন শিক্ষার মান উন্নয়ন হবে আমাদের অন্যতম লক্ষ্য। এই দেশটিকে যদি এগিয়ে নিয়ে যেতে হয় যদি চতুর্থ বিপ্লবের যে প্রয়োজন রয়েছে তাকে যদি পুরণ করতে হয়, আমাদেরকে যদি ২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয়, তার জন্য মানবসম্পদ উন্নয়ন সব চাইতে জরুরি।

তিনি আরো বলেন, জিডিপির অন্তত চার ভাগ আমাদেরকে শিক্ষায় বিনিয়োগ করতে হবে। আমরা বিনিয়োগ বাড়াবো, শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য। যে বিষয়গুলো জরুরী, আমাদের কারিকুলামকে চতুর্থশীল বিল্পবের জন্য যেখানে অটোমেশন বলেন, রোবটিক্স বলেন, আর্টিফিসিয়াল ইন্টালেন্টস বলেন, সেগুলো দিয়েই বিশ্ব চলবে তার জন্য আমাদের শিক্ষার্থীদের তৈরির জন্য শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ এবং তাদের তৈরির জন্য বিনিয়োগ প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রীর নেত্রীত্বে এখন সেই বিনিয়োগ হচ্ছে। শিক্ষার পরিবেশ হবে আনন্দময় যাতে আমাদের শিক্ষার্থীরা শিক্ষার চাপে আনন্দ তিরোহিত না হয়। শিক্ষার মান উন্নয়ণে শিক্ষক প্রশিক্ষণ, মানসম্মত শিক্ষকের বিকল্প নেই।

দীপু মনি আরো বলেন, গবেষণা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সেই গবেষণায় সরকার বিনিয়োগ করছে। আমি শিক্ষকদেরকে বলবো শিক্ষকরা এই গবেষণার কাজে আরোও বেশি মনোযোগি হন। পত্র পত্রিকায় কিছু র‍্যাংকিং এর কথা বলেন বাকিগুলো বলেন না। ইতোমধ্যে আমাদের প্রায় ১৫টি বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্ব র‍্যাংকিং এর বিভিন্ন যায়গায় ভালো অবস্থানে আছে। আমি বিশ্বাস করি আগামী দিনে আমাদের বাকি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ভালো অবস্থানে পৌঁছবে। আজকে আমাদের ভাষার জন্য রক্ত দিতে হবে না, আজকে আমার স্বাধীনতার জন্য রক্ত দিতে হবে না। আজকে আমার প্রয়োজন দেশকে উন্নয়নের দিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য একটু মননিবেশ করা নিজের দায়িত্বটা সঠিকভাবে পালন করা।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন- কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান। অনুষ্ঠোনে বক্তব্য দেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম (এমপি), তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক (এমপি), নাটোর-৪ আসনের এমপি আব্দুল কুদ্দুস, রাজশাহী-৩ আসনের এমপি আয়েন উদ্দিন, সংরক্ষিত আসনের এমপি আদিবা আনজুম মিতা।

দু’দিন ব্যাপি অ্যালামনাই অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী দিনে বেলা ১১টার দিকে ক্যাম্পাস থেকে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিতে প্রতিটি ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। দেশের সর্বপ্রথম এইচএসসি অ্যালামনাই এবং সর্ববৃহৎ অ্যালামনাই এটি বলে দাবি করেছেন আয়োজকরা।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button