রাজশাহী সংবাদ

রুয়েটের চলমান আন্দোলন দু’জনের ব্যক্তিসার্থে!

নিজেস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গত কয়কদিন ধরে চলমান আন্দোলন নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। চলমান এই আন্দোলনের নেপথ্যে কলকাঠি নাড়ছেন রুয়েট কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মহিদুল ইসলাম মোস্তফা। মোস্তফা রুয়েটের ডাটা প্রফেসর হিসেবে কর্মরত আছেন। তার এবং রুয়েটের ইটিই বিভাগের একজন টেকনিক্যাল কর্মকর্তার ব্যক্তিস্বার্থে এইআন্দোলন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এই দুই কর্মকর্তা-কর্মচারীর মধ্যে মোস্তফা টেন্ডার নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছেন। আর অপর ইটিই বিভগের টেকনিক্যাল কর্মকর্তা আরেকটি পদে বদলির জন্য চেষ্টা করছেন। কিন্তু এই দুই কর্মকর্তা-কর্মচারী তাদের ব্যক্তিস্বার্থ পূরণ না হওয়া রুয়েটের হাতেগোনা কয়েকজন কর্মচারীদের নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে আন্দোলন করছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ রয়েছে, এই আন্দোলনে যারা অংশ নিচ্ছেন, তাদের অধিকাংশাই দৈনিক মজুরীভিত্তিক কর্মচারী। এই কর্মচারীদের স্থায়ী নিয়োগের প্রলোভন দিয়ে এবং কাউকে কাউকে জোর করেও আন্দোলনে আসতে বাধ্য করছেন ওই দুই কর্মকর্তা। এছাড়াও আব্দুল্লাহ আল মামুন নামের একজন কর্মচারীকে আন্দোলনে আসার জন্য হুমকি দেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করে জানান তিনি।

এদিকে একাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী অভিযোগ করে জানান, কর্মচারী ইউনিয়নের সদস্যদের ঋণের জন্য এর আগের নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুমোদন হয় ইউনিয়নের সভাপতি মহিদুল ইসলাম মোস্তফার অনুমতিতেই। ওই প্রস্তাবনায় মোস্তফার স্বাক্ষরও আছে। কিন্তু তিনি ব্যক্তি সার্থে আগের নেওয়া সিদ্ধান্তকে অগ্রাহ্য করে নতুন করে একই বিষয়কে সামনে রেখে রুয়েটকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছেন। পাশাপাশি রুয়েটের সদ্য প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিও বাতিলের দাবি করছেন তার স্বার্থে।

একটি গোয়েন্দা সংস্থার একজন কর্মকর্তা বলেন, রুয়েটকে অস্থিতিশীল করার পায়তারা করছে গুটি কয়েক লোক। তাদের ব্যক্তিস্বার্থে এই কাজ করছে তারা। এই পরিস্থিতিতি দ্রুত স্বাভাবিক না হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button