রাজশাহী সংবাদ

রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ। ১৯৭১ সালের এই দিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) জনসমুদ্রে দাড়িয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দিয়েছিলেন। তাঁর এ উদাত্ত আহবানে সাড়া দিয়ে বাঙালি জাতি সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছিল। এই ভাষণেই জেগে উঠেছিল বাঙালি।

৭ই মার্চের বঙ্গবন্ধু’র ঐতিহাসিক ভাষণের দিনটিকে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড পরিবার শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছে। এ উপলক্ষ্যে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে সকাল ০৯.০০ টায় বোর্ড চত্ত্বর হতে একটি র‌্যালী লক্ষীপুর চত্ত্বরে বঙ্গবন্ধ’র ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে এবং সকাল ১০.০০ টায় বোর্ড চত্ত্বরে “ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ” এর তাৎপর্য সম্পর্কে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক ও দায়িত্বপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রফেসর দেবাশীষ রঞ্জন রায়, সচিব, ড. মো: মোয়াজ্জেম হোসেন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক জনাব মো: আরিফুল ইসলাম, কলেজ পরিদর্শক জনাব মো: হাবিুবুর রহমান, উপ-পরিচালক (হিসাব ও নিরীক্ষা) জনাব মো: বাদশা হোসেন, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড অফিসার্স কল্যাণ সমিতির সভাপতি জনাব মো: মুঞ্জুর রহমান খান এবং কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জনাব মো: মাহাবুব আলী।

অনুষ্ঠান সঞ্চালকের দায়িত্বে ছিলেন বোর্ডের প্রধান মূল্যায়ন অফিসার (চলতি দায়িত্ব) জনাব এস.এম. গোলাম আজম (মাখন)। অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বলেন “বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ডড়ৎষফ যবৎরঃধমব এর অংশ হওয়ায় আগ পর্যন্ত আমেরিকার প্রসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন এর গেটিসবার্গ এড্রেসই সেরা হিসেবে স্বীকৃত ছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ভাষণ গুরুত্ব এবং তাৎপর্যে সেটিকে অতিক্রম করে গেছে।

তিনি আরো বলেন, একথা সত্যিযে, ৫২’র ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামের সূচনা হয়েছিল কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের নির্দেশনাই স্বাধীনতা যুদ্ধকে বাস্তবে রূপ দেয়।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button