রাজশাহী সংবাদ

রাজশাহী পলিটেকনিকে অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিত ও পুকুরে নিক্ষেপের ঘটনায় প্রধান আসামী সহ গ্রেফতার -৪

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী ফরিদ উদ্দিন আহমেদকে টেনেহিঁচড়ে পানিতে ফেলার ঘটনায় প্রধান আসামী কামাল হোসেন সৌরভসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের বিশেষ টিম।

গতকাল সোমবার (১৮ নভেম্বর) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে নগরীর বেলপকুর থানার বিসমিল্লাহ পেট্রোল পাম্প এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মামলার প্রধান আসামি কামাল হোসেন সৌরভ (২৪) গুরুদাসপুর থানাধীন চঁচকোড় বাজার এলাকার মোঃ বজলুর রহমানের  ছেলে, দুই  নম্বর  আসামি মোঃ মুরাদ হোসেন (১৯) চারঘাট থানাধীন ইউসুফপুর গ্রামের মোঃ মাহাতাব আলীর ছেলে , তিন নম্বর আসামি মোঃ সাব্বির আহম্মেদ শান্ত (২২) পাবনা(সদর) থা নাধীন দাপুনিয়া গ্রামের মোঃ রইচ শেখের ছেলে ও ছয় নম্বর আসামি সালমান ওরফে টনি (২২) শিবগঞ্জ বাজার এলাকার মোঃ শামিমুল ইসলামের ছেলে।

অ পর এক অভিযানে সিরাজগঞ্জ জেলার হাটিকুমরুল এলাকা থেকে এজাহারভুক্ত আসামী মোঃ রায়হানুল ইসলাম হাসিব(২১) কে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত রায়হানুল ইসলাম নগরীর চন্দ্রিমা থানাধীন ভদ্রা এলাকার মোঃ সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার আবু আহম্মেদ আল আমুন জানান, ঘটনার পর থেকে তারা বিভিন্ন স্থানে পালিয়ে ছিল। দফায় দফায় তার অবস্থান বদল করায় তাদের অবস্থান নিশ্চিত হতে একটু সময় লেগেছে। তবে সোমবার রাতে তারা বেলপুকুর থানার বিসমিল্লাহ পেট্রোল পাম্প এলাকায় আত্মগোপন করে আছেন, এ তথ্যে সেখানে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের নগরীর চন্দ্রিমা থানায় হস্তান্তর করা হবে।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যহত আছে।

প্রসঙ্গত, গত ২ নভেম্বর নামাজ পড়ে কার্যালয়ে ফেরার সময় অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদকে রাস্তা থেকে টেনেহিঁচড়ে পুকুরে ফেলে দেয় ছাত্রলীগের শিক্ষার্থীরা। ওই ঘটনায় ৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৫০ জনকে আসামি করে নগরীর চন্দ্রিমা থানায় মামলা করেন অধ্যক্ষ। মামলায় এনিয়ে ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button