রাজশাহী সংবাদ

রাজশাহী নগরীতে লাল সবুজ অটোরিক্সা চলছে : রাসিকের নির্দেশনা মানছে না কেউ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী নগরীতে লাল ও সবুজ অটোরিক্সা একই সঙ্গে সমান তালে চলছে। সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক নির্দেশনা মানছে না কেউ। নগরীর সবগুলো স্থানেই সকাল থেকে রাত অবধী চলছে এই যানবাহন। নগরীর যানজোট কমাতে সিটি কর্পোরেশন চলতি মাসের প্রথম তারিখ থেকে একবেলা লাল রঙের এং আরেক বেলা সবুজ রঙের অটোরিক্সা চালানোর নির্দেশনা দেয়।

সেইসাথে বাহিরের অটোরিক্সা নগরীতে নিষিদ্ধ ঘোষনা করা হয়। কিন্তু চালকগণ কর্পোরেশনের নির্দেশনা অমান্য করে দিনরাত সব অটোরিক্সা চালাচ্ছে নির্দিধায়।

ট্রাফিক পুলিশ দেখেও না দেখার ভান করছেন। সাহেব বাজার, লক্ষ্মীপুর মোড়, বিন্দুর মোড় রেলগেট ও কোর্ট এলাকাসহ বিভিন্ন স্থানে ট্রাফিক পুলিশের সামনে দিয়ে এই সকল অটোরিক্সা চালাতে দেখা যায়।

চালক স্বপন, রবিন, সৈকিত ও মোজাহার আলীসহ অন্যান্যরা বলেন, একবেলা অটো চালিয়ে তাদের সংসার চালানো এবং অটো ভাড়া তোলা সম্ভব নয়। তাদের অনেক খরচ হয়। আবার একবেলা করে অটোরিক্সা বসিয়ে রাখার কারনে ব্যাটারীর ক্ষতি হচ্ছে। তারা আরো বলেন, চালকদের মধ্যে অনেকেই শিক্ষিত বেকার রয়েছেন। তারা কোন চাকরী না পেয়ে এই কর্ম করে সংসার পরিচালনা করছেন। এক বেলা বসে থাকায় তাদের সংসার চালানো দুরহ ব্যাপার হয়ে পড়েছে। এতে করে ছিনতাই, চুরি ও মাদকে ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাবে বলে আশংকা করেন এই সকল চালকগণ। তারা সবাই বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান।

এদিকে পথচারী আফসার আলী, সুজন, রবিউল, মমতা, রোজি ও সালমা বেগমসহ আরো অনেকে বলেন, সিটি কর্পোরেশন ভাল পদক্ষেপ নিয়েছে। কিন্তু অটোরিক্সা চালকগণ নিয়ম ভঙ্গ করে রাস্তায় একই সাথে দুই রঙের অটোরিক্সা চালাচ্ছে। এতে পূর্বের ন্যায় যানজোট নিত্য ব্যপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বিশেষ করে সাহেব জিরো পয়েন্ট, নিউমার্কেট এলাকা, কোর্ট চত্বর ও বিন্দুর মোড় রেলগেটসহ বিভিন্ন স্থানে যানজোট লেগেই থাকে। এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে ট্রাফিক বিভাগকে কঠোর ভূমিকা পালন করার আহবান জানান তারা।

সিটি কর্পোরেশনের নিয়ম মানতে চালকদের বাধ্য করতে রাজশাহী ট্রাফিক বিভাগের ভূমিকা বিষয়ে জানতে চাইলে ট্রাফিক বিভাগের প্রধান অনির্বান চাকমার নিকট মোবাইলে কল করলে তিনি মোবাইল ফোন রিসিভ করেননি।  

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button