মোহনপুররাজশাহী সংবাদ

রাজশাহীর মোহনপুরে প্রতিবন্ধী নারীর ধর্ষণের ভিডিও ভাইরাল, গ্রেপ্তার ২

মোহনপুর প্রতিনিধি :  রাজশাহীর মোহনপুরে বাক-প্রতিবন্ধী এক নারীর ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটের মাধ্যমে মোবাইল ফোনে ভাইরালের অভিযোগে ধর্ষকসহ সহযোগীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। প্রতিবন্ধী নারীর মা বাদী হয়ে মোহনপুর থানায় ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করেছেন। প্রতিবন্ধী নারীকে পরীক্ষার জন্য রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালের ওসিসি বিভাগে পাঠিয়েছে পুলিশ।

মোহনপুর থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, উপজেলার লালইচ গ্রামে নানার বাড়িতে ২০ বছরের বাক-প্রতিবন্ধী মেয়ে রেখে তার মা দুইবছর পূর্বে বিদেশে যান। গত ২০১৯ সালের ৯ আগস্ট উপজেলার রায়ঘাটি ইউনিয়নের বর্তমান ইউপি সদস্য ও লালইচ গ্রামের জেকের আলীর ছেলে ৮ম শ্রেণীর ছাত্র লিটন মাহমুদ (১৪) লালইচ বহুমুখি আলিম মাদ্রাসার পরিত্যক্ত শ্রেণি কক্ষে নিয়ে গিয়ে বিকেল আড়াইটার সময় ধর্ষণ করা অবস্থায় ধর্ষণের ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে। তারপর গত ২০১৯ সালের ১৯ আগস্ট মামলার আরেক আসামি লালইচ গ্রামের আবুল হোসাইন মন্ডলের ছেলে বুলবুল আহম্মেদ (১৭) ধর্ষক লিটন মাহমুদের মোবাইল ফোন থেকে ধর্ষণের ধারণ করা ভিডিও নিয়ে এলাকায় ইন্টারনেটের মাধ্যমে মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে দেয়।

প্রতিবন্ধী নারীর মা গত ২০১৯ সালের ২৫ নভেম্বর বিদেশ থেকে বাড়ি আসার পর বিষয়টি শুনতে পান। বিষয়টি তেমনভাবে প্রকাশ না হওয়া ধাপাচাপা পড়ে যায়। গত কয়েকটিন ধরে ধর্ষণের ভিডিও এলাকায় ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে গেলে আলোচনার ঝড় উঠে।

খবর পেয়ে মোহনপুর থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ বুধবার রাতে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে লালইচ গ্রামে গিয়ে ধর্ষক লিটন মাহমুদকে গ্রেপ্তার করেন এবং ভিকটিমকে থানায় নিয়ে আসেন। ধর্ষণকারী লিটনের তথ্যানুসারে ভিডিও প্রেরণকারী বুলবুল আহম্মেদকে রাতেই গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওসি জানান, আসামিদের বয়স কম হওয়ায় তাকে যশোহর শিশুশ্রম আদালতে প্রেরণ করা হবে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো পড়ুন
Close
Back to top button