দূর্গাপুররাজশাহী সংবাদ

মহিলা পুলিশ কর্মকর্তা হয়েও আলোচনায় ওসি কনা

দুর্গাপুর প্রতিনিধি: একজন মহিলা পুলিশ কর্মকর্তা হয়েও মাত্র তিন মাসেই থানার অনেক রুপ বদল করে এরই মাঝে আলোচনায় এসেছে দুর্গাপুর থানার প্রথম নারী ওসি খুরশীদা বানু কনা। চলতি বছরের ২২ জুলাই রাজশাহীর দুর্গাপুর থানায় ওসি হিসেবে যোগদান করেন এই চৌকস নারী পুলিশ কর্মকর্তা।

এর আগে তিনি রাজশাহীর আদালতে দীর্ঘ সময় নিষ্ঠার সাথে দ্বায়ীত্ব পালন করেছেন বলে জানান রাজশাহীর জেলা কোট পুলিশের পরিদর্শক আব্দুস সবুর আলী। তিনি বলেন একজন নারি পুলিশ হিসেবে খুরশিদা বানু কনা যথেষ্ট পরিশ্রমি ও দক্ষ। সে আমার এখানে থাকা কালিন সময়ে আমি সেটা লক্ষ করেছি। দুর্গাপুরে ওসি হিসেবে যোগদানের পর থেকে এই পুলিশ কর্মকর্তা সাধারন মানুষের মাঝে একটি স্থান করে নিয়েছেন বলেও জানান দুর্গাপুরের একাধিক ব্যক্তি।

দুর্গাপুরের সরকার দলীয় পদ ধারি একজন ব্যক্তি সংবাদ চলমান কে বলেন পুর্বে এই থানার ওসি মোতালেব যে কর্মকান্ড করেছেন তাতে সাধারন মানুষের পুলিশের প্রতি একটা বিরুপ মন্তব্য হতে শুরু করেছিল, কিন্তু মাত্র তিন মাসের মধ্যেই এই নবাগত ওসি সেটিকে অন্য ভাবে রুপান্তিত করেছে।

দুর্গাপুরের একজন গন মাধ্যম কর্মী বলেন আমি নিজেও তার কাজের প্রশংসা করি, বিশেষ করে থানায় কোন অভিযোগ আসলে ওসি নিজে সেটিকে প্রাথমিক ভাবে আপসের চেস্টা করেন। বিশেষ করে ঘরোয়া সমস্যার সমাধানে তার সুনাম জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে।

দুর্গাপুর থানা পুলিশের একজন স্টাফ জানান ম্যাডাম যোগ দানের পর প্রথমেই সকল পুলিশ সদস্যদের ডেকে বলে দিয়েছেন নিয়ম বর্হিভূত কোন কাজ করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

সুত্র টি আরো বলেন প্রতিনিয়ত থানার বৈঠক ঘরে বিভিন্ন অভিযোগের সমাধান দিয়ে থাকেন এই নারি পুলিশ কর্মকর্তা। এ ছাড়াও জিডি অভিযোগ করতে আসা কোন ব্যক্তির নিকট কেউ সুবিধা নিলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি হুশিয়ারি দিয়েছেন তিনি ।

রাজশাহী জেলা পুলিশের একজন কর্মকর্তা বলেন এই ধরনের দক্ষতার জন্যই পুলিশ সুপার তাকে দুর্গাপুর থানার ওসির দ্বায়ীত্ব দিয়েছেন, তার সফলতার অনেক খবর এরই মাঝে পুলিশের উপর মহলে আসতে শুরু করেছে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button