রাজশাহী সংবাদ

ভুমি দস্যুদের রষা নলে পুলিশের এ এস আই

দুর্গাপুর প্রতিনিধিঃ দুর্গাপুরে ভুমি দস্যুদের রষানলে পড়ে নিজের মায়ের সম্পদ হারাতে বসেছে পুলিশের এক সহকারি উপ- পরিদর্শক ( এএস আই) আশরাফুল। ঘটনার বিবরনে জানা যায় দুর্গাপুর সিংগা গ্রামের বীর মুক্তি যোদ্ধা মরহুম জসিম উদ্দিনের ছেলে আশারাফুল ইসলাম তার নানার রেখে যাওয়া ১২ শতক জমির আংশিদার হলেও একই গ্রামের মৃত হানিফ কারিকরের ছেলে বকুল তার অলৈকিক ক্ষমতা দেখিয়ে সেই জমি দখলে নেওয়ার চেস্টায় মেতে উঠেছেন।

অভিযোগ রয়েছে এই বকুলের নামে পুর্বেও জমি দখল কে কেন্দ্র করে ৪টি জিডি ও অভিযোগ রয়েছে দুর্গাপুর থানা ও রাজশাহীর আদালতে। সিংগা গ্রামের নাজমা খাতুন জানান, চলতি বছরের ১৫/১/ইং তারিখে জমি জমার রেস ধরে বকুল ও তার দল বল আমাকে হত্যার হুমকি প্রদান করেন বিষয়টি আমি দুর্গাপুর থানাকে অবহিত করি এবং তাদের কথা মত থানায় জিডি করি দুর্গাপুর থানার জিডি নং ৬৬২। একই গ্রামের গোলাপি বেগম স্বামী মোঃমকবুল হোসেন অভিযোগ করে বলেন ,১৬/১/২০২০/তারিখে সিংগা গ্রামের হানিফ কারিকরের ছেলে বকুল আমাকে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে হুমকি দেয় আমি তাকে সহ ৩ জনের বিরুদ্ধে দুর্গাপুর থানায় একটি জিডি করি যাহার নং ৬৯৬ ।

সিংগা গ্রামের একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন এই বকুলের সকল কাজ কর্মই বিতর্কিত। চলতি বছরের ২২ তারিখে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরেও এই বকুলের নক্সা অবমাননার একটি অভিযোগ দায়ের করেন মাজেদা খাতুন নামের একজন মহিলা। এ ছাড়াও দুর্গাপুর পৌরসভা গত মাসে আইন অমান্য করার দায়ে ২০২০-১৯/১০০ স্বারকে একটি নোটিশ করেন বকুলের নামে দুর্গাপুর পৌরসভা। দুর্গাপুর মহিলা কলেজের প্রভাসক শহিদুল ইসলাম রাজশাহীর আদালতে বকুলের নামে জমিদখলের একটি মামলা দায়ের করেছেন যে মামলাটি বর্তমানে আদালতে চলমান রয়েছে। তবে পুলিশের ভাব মুর্তি নস্ট করে যে বা যাহারা বিভিন্ন গন মাধ্যমে মিথ্যে সংবাদ প্রকাশ করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে তাদের বিরুদ্ধে শিঘ্রই আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান এ এস আই আশারাফুল। তিনি বলেন আমার বাবা একজন বীর৷ মুক্তি যোদ্ধা ছিলেন আর তার রক্ত শরিরে বহন করে আজ আমি পুলিশের চাকরির মত মহান পেশাকে বেছে নিয়ে দেশের জন্য কাজ করছি সেটি নিয়ে আমি কারো অন্যায় করতে পারিনা। একটি সিন্ডিকেট আমাকে ছোট করার জন্য মিথ্যে সংবাদ সহ বিভিন্ন পথ অবলম্বন করছে। তিনি আরো বলেন আমি আমার নিজের জায়গা নিজে ভোগ করতে গেলেই আমাকে পুলিশের ক্ষমতার কথা বলা হচ্ছে, যা দুঃখ জনক।

দুর্গাপুর বাজার জামে মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ নুরুজ্জামানের বসত বাড়িও বে দখলে নেওয়ার চেস্টা করছে এই বকুল। তিনি জানান আমি তার রাক্ষুসী ছোবলের আসংকা করছি সে যে কোন সময় আমার পরিবারের উপর হামলা করতে পারে বলেও জানান তিনি। সিংগা গ্রামের আনছার আলি জানান আমি বকুলের নামে দুর্গাপুর থানায় জমি দখলের অভিযোগ দিয়েছি সেটির সমাধান করার আস্বাস দিয়েছে পুলিশ।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button