বাঘারাজশাহী সংবাদ

বাঘায় মাদক সম্রাট মিলনকে গ্রেফতার করতে গিয়ে পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টরসহ আহত ৬

বাঘা প্রতিনিধি:
রাজশাহীর বাঘায় মাদক সম্রাট মিলন হোসেনকে গ্রেফতার করতে গিয়ে পুলিশের ৪জন সাব-ইন্সপেক্টরসহ ৬ জন আহত হয়েছে। আজ রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার ভানুকর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

জানা যায়, উপজেলা ভানুকর গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে রিপন হোসেনের বাড়িতে একই গ্রামের মাসুম হোসেনের ছেলে মিলন হোসেন (৩২) বস্তায় ফেন্সিডিল প্যাকেট করে চালান দেয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এ সংবাদ পেয়ে বাঘা থানার পুলিশ ওই বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশের উপস্থিত টের পেয়ে রিপন হোসেন পালিয়ে যায়। কিন্তু মিলন হোসেন পালাতে না পেরে ওই বাড়ির ঘরের মধ্যেই থেকে যায়। এ সময় পুলিশ মিলন হোসেনকে গ্রেফতার করতে যায়। তার কাছে থাকা বড় হাসুয়া দিয়ে পুলিশের উপর আক্রমন করতে আসে। পরে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়া হয়।

পরবর্তীতে অতিরক্তি পুলিশ গিয়ে তাকে গ্রেফতার করার চেষ্টা করে। পুলিশ কৌশলে তার কাছে থাকা অস্ত্রগুলো চায় এবং আত্মসমর্পণ করতে বলে। এতে সে একটি অস্ত্র জমা দিলেও তার কাছে রেখে দেয় বড় একটি ধারালো হাসুয়া। তার আক্রমনে চার পুলিশ আহত হয়। পুলিশ এ সময় আত্মরক্ষার জন্য রাবার বুলেট ছুড়ে। এতে মিলন হোসেন আহত হয়েছে। তাকে উদ্ধার করে চারঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে ভর্তি করা হয়েছে।

পরে পুলিশ ওই বাড়ি থেকে এক বস্তা ফেন্সিডিল, একটি রামদা, একটি বটি, একটি ধারালো হাসুয়া, ইয়াবা খাওয়ার সরঞ্জম, ৮০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।

মিলনের আক্রমনে আহতরা হলেন-বাঘা থানার সাব-ইন্সপেক্টর লুৎফর রহমান, নুরুন নবী, রেজাউল করীম, মাসুদ ইকবাল ও স্থানীয় ভানুকর গ্রামের শরিফ উদ্দিন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, মিলন হোসেন একজন তালিকা ভূক্ত মাদক ব্যাবসায়ী। সে ফেন্সিডিল চালান দেয়ার প্রস্তুতির সময়ে তাকে আটক করতে গিয়ে ৪ সাব-ইন্সপেক্টরসহ স্থানীয় এক ব্যক্তি আহত হয়েছে। আত্মরক্ষার্থের পুলিশের রাবাট বুলেটে মিলনও আহত হয়েছে। তাকেও চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে ভর্তি করা হয়েছে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button