বাঘারাজশাহী সংবাদ

বাঘায় ফিল্মি স্টাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অভিযান

ইশরাত জাহানঃ আজ সোমবার বিকেল ৩টা ৩০ মিনিটে বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ( ইউ এন ও) শাহিন রেজার নেতৃত্বে অবৈধ বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে এক ঝটিকা অভিযান পরিচালনা হয়। এই সময় অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে সুজন ও মকছেদ নামের দুই ব্যক্তির নিকট থেকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন তিনি। স্থানিয়রা জানান দীর্ঘ দিন ধরে এই অবৈধ বালি উত্তোলনের সাথে জড়িত থেকে কাজ করে একটি সিন্ডিকেট।
তবে আজ বিকেলের বিষয়টি ছিল ভিন্ন ইউ এন ও শাহিনরেজা অপরাধিদের আইনের আওতায় আনার জন্য ভিন্ন পথ অবলম্বন করে অপরাধিদের মাঝে চমক সৃস্টি করেন তিনি। রাস্তায় সরকারি গাড়ি রেখে মটর সাইকেল যোগে নদির দিকে ছুটে যান প্রকৃত অপরাধিদের আইনের আওতায় আনার জন্য তিনি জরিমানার সাথে মুচলেকা নিয়েছেন ভবিষ্যতে বালু উত্তোলন করবেনা বলে। তবে বাঘা উপজেলার কিশোর পুর এলাকায় একটি অবৈধ বালু ঘাট চলছে এরই অনুসন্ধানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেরিয়ে গেলেও নির্ধারিত স্থানে পৌছার পুর্বেই অপর বালু ঘাটের সন্ধান পেয়ে এই অভিযান পরিচালনা করেন তিনি। স্থানিয়রা আরো অভিযোগ করে বলেন এই সকল বালুঘাটের কারনে শিক্ষার্থী সহ পথ চারিদের অসুবিধায় পড়তে হয় প্রতিনিয়ত।
এক দিকে অবৈধ বালু ঘাট অপর দিকে দূরদশা, এই নিয়ে কেউ মুখ খোলার শাহস পর্যন্ত পায়না এরা প্রভাব শালি হওয়ার কারনে। কিশোর পুর বালুঘাটে কিছু দিন পুর্বে বাঘা উপজেলার সহকারী কমিশনার( ভুমি) অভিযান দিতে গিয়ে লাঞ্চিত হওয়ার মত ঘটনা ও ঘটেছে। সেই একই স্থানে পুনরায় কি অলৌকিক ক্ষমতার দাপটে পুনরায় চলছে বালু উত্তোলন। অভিযোগ রয়েছে এই কিশোরপুর ঘাটের বালু উত্তোলন সহ সকল কিছুই চলে স্থানিয় একজন নব চেয়ারম্যানের ইশারায়।
জানতে চাইলে বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সংবাদ চলমানকে জানান অপরাধি যেই হোক তাদের আইনের আওতায় আনা হবে তাদের কে আইনের আওতায় আনতে সকল পথ অবলম্বন করা হবে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button