বাঘারাজশাহী সংবাদ

বাঘায় অসুস্থ মাকে ফেলে গেছেন শিক্ষক সন্তান

বাঘা প্রতিনিধি : বানভাসি অসুস্থ মাকে ফেলে চলে গেছেন অকৃতজ্ঞ এক স্কুলশিক্ষক সন্তান। এই সন্তানের নাম বেল্লাল হোসেন।

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পদ্মার চরে এ ঘটনা ঘটে। বানভাসি অসুস্থ মাকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বারান্দায় রেখে স্ত্রী-সন্তানদের সঙ্গে তিনি চলে গেছেন ভায়রার বাড়ি।

নদীতে পানি বৃদ্ধির কারণে গত ১০ দিন ধরে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে চকরাজাপুর ইউপির প্রায় দুই হাজার পরিবার। এদের অনেকেই সাপের ভয়ে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে। এর মধ্যে পাঁচশতাধিক পরিবার তাদের বাড়ি-ঘর ছেড়ে ১১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়েছে। এর মধ্যে চকরাজাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের বারান্দায় শুকুরজান  নামে একজন বৃদ্ধ মাকে ফেলে চলে গেছেন তার স্কুলশিক্ষক সন্তান বেল্লাল হোসেন।

বেলাল হোসেন লক্ষীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। অভিযোগ পাওয়া গেছে, বন্যার কারণে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্কুল ছুটি ঘোষণা করায় বেল্লাল হোসেন ৪ দিন আগে তার অসুস্থ মাকে ফেলে স্ত্রী-সন্তানদের সঙ্গে নিয়ে ভায়রার বাড়ি চলে গেছে। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাঘার ইউএনও শাহিন রেজা।

শিক্ষক বেল্লাল হোসেন সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনা সত্য নয় দাবি করে বলেন, বন্যার কারণে আমি আমার বাড়ি-ঘর ভেঙে ভায়রার বাড়ি চলে এসেছি। বর্তমানে মাকে দেখা-শোনা করছে আমার বোন।

ইউএনও বলেন, শনিবার দুপুরে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর পিএস ও উপসচিব গোলাম মওলা, (এপিএস) সিরাজুল ইসলাম, চকরাজাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল আযমকে সঙ্গে করে চকরাজাপুর এলাকায় বন্যা পরিদর্শন করতে গিয়েছিলাম। সেখানে লোকমুখে ওই বৃদ্ধার ঘটনা শোনার পর স্কুলে গিয়েছিলাম। অসুস্থ বৃদ্ধার সঙ্গে কথা বলেছি। তার সন্তানের বিষয়ে শোনার পর ভীষণ খারাপ লেগেছে। এই মুহূর্তে বৃদ্ধাকে দেখা-শোনার দায়িত্ব দিয়েছি ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল আযমকে।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button