রাজশাহী সংবাদ

ফেনসিডিল বিক্রির প্রতিবাদ করায় মুক্তিযোদ্ধাকে মারধর, আটক ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক:
রাজশাহীর পবায় ফেনসিডিল বিক্রির প্রতিবাদ করায় আবু সামা নামে একজন মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের সদস্যদের মারধর করে জখম করেছে মাদক ব্যবসায়ীরা। ঘটনায় আহত দুই জন আহত হয়েছেন। তারা বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সোমবার (১৮ নভেম্বর) দুপুরের দিকে উপজেলার মুরারিপুরের জঙ্গালপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা নিজে বাদী হয়ে তিন মাদক ব্যবসায়ীর নাম উল্লেখ করে আরও পাঁচ থেকে ছয় জনকে আসামি করে দামকুড়া থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার পর পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে সন্ধ্যায় তিন জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মূল অভিযুক্ত মাদক ব্যবসায়ী রমজান আলী (৩২), তার পিতা আব্দুল মান্নান, তার মামা (নাম জানা যায় নি)। তাদেরকে থানা হাজতে রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

মামলার এজহারের বরাত দিয়ে দামকুড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাজহারুল ইসলাম জানান, সোমবার দুপুরের দিকে রমজান আলী বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু সামার বাড়ির সামনে ফেনসিডিল কেনাবেচা করছিল। বিষয়টি দেখে মুক্তিযোদ্ধা আবু সামা মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ এবং তার বাড়ির আশেপাশে মাদক বেঁচতে রমজানকে নিষেধ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মাদক ব্যবসায়ী রমজান মুক্তিযোদ্ধাকে বাজে ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। একপর্যায়ে কথাকাটাকাটি এবং মুক্তিযোদ্ধাকে চড়-থাপ্পড় এবং গায়ে ধাক্কা দিয়ে লাঞ্ছিত করেন।

ওসি আরও জানান, বিষয়টি দেখে মুক্তিযোদ্ধার ভাই রায়হান আলীসহ পরিবারের সদস্যরা এগিয়ে আসলে দু’পক্ষের মধ্যে মারামারি শুরু হয়। এতে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের দুই জন আহত হন। তাদেরকে প্রথমে পবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ওসি মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা মামলার তিন আসামিকে গ্রেফতার করেছি। এদের মধ্যে মাদক ব্যবসায়ী রমজান আলীর বিরুদ্ধে রাজশাহীর বিভিন্ন থানায় একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। আর ঘটনায় জড়িয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের মারধর করার অভিযোগে রমজানের বাবা ও মামাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।’

 

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button