রাজশাহী সংবাদ

গণতন্ত্র হত্যা দিবসে রাজশাহী মহানগর ও জেলা বিএনপি’র বিক্ষোভ সমাবেশ :মিনু

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : রাজশাহী মহানগর ও জেলা বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের আয়োজনে নগরীর মালোপাড়াস্থ বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ হয়।

গতকাল সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় গণতন্ত্র হত্যা দিবস এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে এ সমাবেশ করেন তারা।

বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক রাসিক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য জননেতা মিজানুর রহমান মিনু। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমটির সদস্য ও জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আবু সাঈদ চাঁদ, যুগ্ম আহবায়ক সাইফুল ইসলাম মার্শাল, জেলা বিএনপি’র সদস্য সৈয়দ মহসিন আলী ও মোহনপুর উপজেলা সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুস সামাদ।

এছাড়াও রাজপাড়া থানা বিএনপি’র সভাপতি শওকত আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউল হক রানা, জেলা বিএনপি’র সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য জাহান পান্না, অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম, জাকিরুল ইসলাম বিকুল, সদর উদ্দিন, সাইদুর রহমান মন্টু, প্রফেসর ইউনুস আলী, কেন্দ্রীয় কৃষক দলের সাবেক সদস্য আব্দুল ওয়াদুদু হাসান, মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি নজরুল ইসলাম খোকা, শাহ্ মখ্দুম থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, বোয়ালিয়া থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম মিলু, রাজপাড়া থানা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক মুরাদ পারভেজ পিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক দিলদার হোসেন ও মতিহার থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক ডিকেন উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন।

আরো উপস্থিত ছিলেন মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমনসহ মহানগর, থানা, উপজেলা, ইউনিয়ন, পৌরসভা ও বিভিন্ন ওয়ার্ড বিএনপি, অঙ্গ ও সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি বক্তব্যে মিনু বলেন, দেশের ৯৯ভাগ মানুষকে এই সরকার অর্থনৈতিকভাবে পঙ্গু করে ফেলেছে। দেশ এখন তলাবিহিন ঝুড়িতে পরিণত হয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রা আসা বন্ধ হয়ে গেছে। দেশ থেকে জনশক্তি রপ্তানী অর্ধেকের থেকেও কমে এসেছে। এর কারন হচ্ছে দেশে এখন কোন প্রকার গণতন্ত্র নাই। ২০১৮ সালে ২৯ ডিসেম্বর রাত্রে এবং ৩০ তারিখ দিনব্যাপি ভোট ডাকাতী করে এই সরকার ক্ষমতায় এসেছে। এর কারনে বহিরবিশ্ব বাংলাদেশ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, ব্যাংকে এখন কোন রিজার্ভ নাই। অর্থ সংকটের কারনে ব্যবসা বাণিজ্যের চরম ক্ষতি হচ্ছে। দেশের সব টাকা বর্তমান অবৈধ প্রধানমন্ত্রীর পরিবারে চলে গেছে। দেশটাকে একটা পরিবারতন্ত্রে পরিণত করছে এই সরকার। তিনি বলেন, ভারতের উপর নির্ভর করে শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসেছেন। কিন্তু ভারতের এখন করুন দশা। যে কোন সময় মোদি সরকারের পতন হতে পারে। আর বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী যে বাঘের পিঠে ক্ষমতায় এসেছে। সেই বাঘই একদিন খেয়ে ফেলবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, বেগম জিয়া কোন দুর্নীতি না করলেও এখন মিথ্যা ও সাজানো মামলায় সাজপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে আছেন। মারাত্বক অসুস্থ হলেও সরকার তাঁকে জামিন দিচ্ছেনা। এখন এই অবৈধ সরকারের নিকট আর বেগম খালেদা জিয়ার জণ্য কোন প্রকার জামিনের আবেদন বা মুক্তির দাবী করা হবেনা। এখন রাস্তায় নেমে আন্দোলনের মাধ্যমে বেগম জিয়াকে মুক্ত করা হবে বলে জানান মিনু।

সেইসাথে আসছে ২৬ মার্চ ৩০হাজার উপরে নেতাকর্মী নিয়ে রাস্তায় র‌্যালি করা হবে। আব বাধা আসলে সেখানেই প্রতিহত করা হবে তিনি হুঁশিয়ারী দেন তিনি।

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button