রাজশাহী সংবাদ

এবার রাজশাহী-খুলনা রুটের সাগরদাঁড়ির কোচ পরিবর্তন

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী বনলতার কোচ পরিবর্তনের পর এবার রাজশাহী-খুলনাগামী সাগরদাঁড়ি ট্রেনের কোচ পরিবর্তন করা হচ্ছে। সিডিউল বিপর্যয়রোধে এই রুটেও এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন রেলওয়ে কর্মকর্তারা। তবে রাজশাহী-খুলনা রুটের নতুন কোচ পরিবর্তন করে পুরনো কোচ দেওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন যাত্রীরা।

যাত্রীদের ক্ষোভ থেকে রক্ষা পেতে গতকাল সোমবার থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়। অনেকটা গোপনেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে কর্মকর্তারা।

রেলওয়ে সূত্র মতে, রাজশাহী-খুলনা রুটে প্রতিদিন দুটি ট্রেন চলাচল করে একই কোচ দিয়ে। এর মধ্যে রাজশাহী থেকে সকাল ৬ টা ৪০ মিনিটে সাগরদাঁড়ি নাম দিয়ে ছেড়ে যায় খুলনার উদ্দেশ্যে আর খুলনা হতে বিকেলে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে কপোতাক্ষ নাম দিয়ে। এই ট্রেনেই বছর খানেক আগে যুক্ত হওয়া নতুন কোচটি পরিবর্তন করে খুলনা থেকে ঢাকাগামী সীমান্ত ট্রেনের পুরনো কোচটি দেওয়া হয়েছে রাজশাহী-খুলনা রুটে।

জানতে চাইলে রাজশাহী স্টেশন ম্যানেজার আব্দুর করিম বলেন, ‘খুলনা-ঢাকা-খুলনা রুটে প্রতিদিন তিনটি ট্রেন চলাচল করে দুটি রেক দিয়ে (একটি ট্রেনের সব কোচ মিলে একটি রেক)। এর মধ্যে একটি রেক পুরনো আরেকটি নতুন। এতে করে কোনো একটি ট্রেনের সিডিউল বিলম্ব হলে পুরো সিডিউল ভেঙে পড়ে। এ কারণেই ওই রুটে চলাচলকারী সীমান্ত ট্রেনের পুরনো কোচ পরিবর্তন করে রাজশাহী-খুলনাগামী সাগরদাঁড়ি ট্রেনের সঙ্গে যুক্ত করে দেওয়া হয়। আর এই ট্রেনের নতুন রেকটি খুলনা-ঢাকাগামী তিনটি ট্রেনেই যেন সংযুক্ত করা যায় তার জন্য পরিবর্তন করা হয়। এটি হলে দুই অঞ্চলেই যাত্রীদের সুবিধা হবে। কারণ কোনো ট্রেনই আর বসে থাকবে না। একটি সিডিউল বিপর্যয় হলে আরেকটি দিয়ে চালানো যাবে।

তবে রাজশাহী-খুলনা রুটে চলাচলকারী যাত্রী নজরুল ইসলাম বলেন, ‘এই রুটের নতুন কোচ পরিবর্তনের ফলে আমাদের সঙ্গে প্রতারণা করা হলো। কারণ এই রুটে তেমন সিডিউল বিপর্যয় হয় না। সিডিউল বিপর্যয় হয় খুলনা-ঢাকা রুটে। তাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে আমাদের নতুন কোচ পরিবর্তনের কোনো মানে হয় না। রাজশাহী থেকে এভাবে একে একে নতুন কোচগুলো সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে কায়দা করে।’
নজরুলের মতো ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আরো অনেকেই। আজ পুরনো কোচটি রাজশাহীতে আসার পরে এই ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকেও। এর আগে বিষয়টি জানাজানি হয়নি। এটি অনেকটা গোপনে করা হয়েছে বলে রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে।

কারণ এর আগে বনলতার কোচ পরিবর্তনের সময় গণমাধ্যমে এ নিয়ে খবর প্রকাশের পর ওই সিদ্ধান্ত বাতিল করা হয়। পরে রাজশাহীর সুবিধার কথা বিবেচনা করে গত শুক্রবার থেকে কোচ পরিবর্তনের সিদ্ধান্তেই অটল থেকে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

জানতে চাইলে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রধান টেলিকমিউনিকেশন ও সিগন্যাল কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম বলেন, যা কিছু করা হচ্ছে যাত্রীদের সুবধিার কথা বিবেচনা করেই। পুরনো রেকের কারণে দুই রুটেই সমস্যা হচ্ছিল। এখন দুটি রুটে রেক সমন্বয় করা হলো যাতে করে কোনো রুটেই সিডিউল বিপর্যয় না হয়।’

এই ধরণের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button